নায়ক রাজ্জাক কে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানালো শিল্পী সমিতি

ডেস্ক এডিটরডেস্ক এডিটর
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:৫৬ PM, ২১ অগাস্ট ২০২০

১৯৩ জন সংবাদটি দেখেছেন

বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি নায়ক, প্রযোজক ও পরিচালক নায়করাজ রাজ্জাকের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০১৭ সালের ২১ আগস্টের এই দিনে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় না ফেরার দেশে চলেন যান ক্ষণজন্মা এই অভিনেতা। বাংলা চলচ্চিত্রে দীর্ঘ পাঁচ দশক এই নন্দিত অভিনেতা অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে অভিনয় করে নায়করাজ হিসেবে উপাধি লাভ করেন।

নায়করাজের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকীতে প্রিয় শিল্পীকে ফুলেল শ্রদ্ধায় স্মরণ করেছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি।শুক্রবার (২১ আগস্ট) দুপুর ১২টার দিকে শিল্পী সমিতির পক্ষ থেকে সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর, সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান, শুভ্রত, জয় চৌধুরী বনানী কবরস্থানে নায়করাজের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান, এর পর কবর জিয়ারত করেন।

শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, নায়করাজ আমাদের চলচ্চিত্রের মাথার মুকুট ছিলেন। তিনি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন। চলচ্চিত্র ও শিল্পী সমিতিতে তার অবদান ভোলার মতো নয়। আজ শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি তাকে। তার জন্য দোয়া করছি, তিনি যেন শান্তিতে থাকেন।

তিনি আরো বলেন শিল্পী সমিতির পক্ষ থেকে দুপুর ১২টার দিকে বনানী কবরস্থানে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছি ও কবর জিয়ারত করেছি। আজ শুক্রবার এফডিসি বন্ধ তাই আগামীকাল শনিবার শিল্পী সমিতিতে কোরআন তেলাওয়াত, মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করবো। এছাড়া দুঃস্থ ও এতিমদের মাঝে খাবার বিতরণ করবো।

অভিনেতা রাজ্জাক ১৯৪২ সালের ২৩ জানুয়ারি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার টালিগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬৪ সালে রাজ্জাক তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে চলে আসেন। চলচ্চিত্রকার আবদুল জব্বার খানের সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ শুরু করেন। নায়ক হিসেব তার প্রথম চলচ্চিত্র হচ্ছে জহির রায়হান পরিচালিত ‘বেহুলা’। সেই থেকে তিনি ৩ শতাধিক চলচ্চিত্রে নায়ক হিসেবে অভিনয় করেন। প্রযোজনা ও পরিচালনা করেন ১৬টি চলচ্চিত্র।

রাজ্জাকের অভিনয় করা উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রগুলো হচ্ছে- বেহুলা, আগুন নিয়ে খেলা, এতুটুকু আশা, নীল আকাশের নিচে, ক খ গ ঘ ঙ, জীবন থেকে নেয়া, নাচের পুতুল, অশ্রু দিয়ে লেখা, ওরা ১১ জন, অবুঝ মন, রংবাজ, আলোর মিছিল, কি যে করি, গুন্ডা, অনন্ত প্রেম, অশিক্ষিত, ছুটির ঘন্টা, মহানগর, বড় ভাল লোক ছিল, রাজলক্ষী শ্রীকান্ত, স্বরলিপি, বাদী থেকে বেগম, বাবা কেন চাকর প্রভৃতি। তিনি সাতবার চলচ্চিত্রে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে জাতীয় পুরস্কার লাভ করেন। চলচ্চিত্রে বিশেষ অবদানের জন্য আজীবন সম্মাননাসহ অসংখ্য পুরস্কার লাভ করেন।

আপনার মতামত লিখুন :